সংকল্পে সোচ্চারে সফল দু’দিনব্যাপী সাধারণ ধর্মঘট

এ আই সি সি টি ইউ-র পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির পক্ষ থেকে সাধারণ সম্পাদক বাসুদেব বসু ৯ জানুয়ারী এক প্রচারিত বিবৃতিতে বলেন, ১০টি কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়ন ও ফেডারেশন সমূহের আহ্বানে ৮-৯ জানুয়ারি কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের আর্থিক ও শিল্পনীতির বিরুদ্ধে দেশব্যাপী সাধারন ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হয়েছিল। এ আই সি সি টি ইউ এই ধর্মঘটের অন্যতম আহ্বায়ক ছিল। দেশব্যাপী এক ঐতিহাসিক ধর্মঘট হল। তথ্য অনুযায়ী ২০ কোটির উপর মানুষ এই ধর্মঘটে সামিল হয়েছিল। আমাদের রাজ্যে এ আই সি সি টি ইউ-র কর্মীরা বিগত ২ মাস ধরে ধর্মঘটকে সফল করে তুলতে লাগাতার রাস্তায় প্রচার অভিযানে থেকে ও পরিশেষে বনধে্র দিনগুলিতে যে সাহসী ভূমিকা নিয়ে লড়াই করেছেন তা অভিনন্দনযোগ্য। এই ধর্মঘটে সি পি আই (এম- এল)-র সমস্ত জেলা কমিটি, গ্রামাঞ্চলে এ আই কে এম, আয়ারলা বিরাট ভূমিকা নেয়। যেখানে এ আই সি সি টি ইউ নেই সেখানেও এ আই সি সি টি ইউ-র ব্যানারকে কমরেডরা সামনে এনেছেন। শ্রমজীবী মহিলাদের দাবি গুলি নিয়ে আইপোয়া এক লাগাতার প্রচার চালিয়েছেন। এবারের ধর্মঘটে ছাত্র-যুব সংগঠন আইসা, আর ওয়াই এ নতুন নতুন প্রচার মানুষের দৃষ্টি আকর্ষন করেছে। ছাত্র-যুব বাহিনী শ্রমিক মহল্লায় নিবিড় প্রচার করেছেন যা শিক্ষনীয়। দক্ষিণবঙ্গের চটকল শ্রমিক ও উত্তরবঙ্গের চা শ্রমিকরা এবারের ধর্মঘটে সমস্ত হুমকিকে অগ্রাহ্য করে যে সাহস ও অদম্য মনোভাব নিয়ে ধর্মঘট সফল করেছেন তা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। বিশেষ করে প্রথম দিনের সফলতার পর উত্তর ২৪ পরগনার বাহাদুর জুট শ্রমিক ও আমাদের কমরেডরা প্রশংসনীয় উদ্যোগ নিয়েছিলেন। তৃনমূলী গুন্ডাবাহিনীর বিরুদ্ধে দৃপ্ত মিছিল এক উজ্জ্বলতম দিক ছিল এই ধর্মঘটে। ছাত্র কমরেড হাওড়া জেলার অংকিত, যাদবপুরের অভিজ্ঞান সহ অনেকেই সাহসী মনোভাব নিয়ে রুখে দাঁড়িয়েছেন। এ আই সি সি টি ইউ সহ ছাত্র, যুব, মহিলা, কৃষক সংগঠন নিজস্ব পোষ্টার, লিফলেট ইত্যাদি নিয়ে প্রচার করেছে। এ আই সি সি টি ইউ-র বিভিন্ন ক্ষেত্রগুলি জুট, নির্মান, পরিবহন, মিড ডে মিল, স্ট্রীট হকার প্রভৃতি আলাদা করে পোষ্টার/ লিফলেট ও পরিবহন বার্তা বুলেটিন প্রকাশ করেছে যা প্রচারের ক্ষেত্রে এক অনন্য নজির। এই রাজ্যে তৃণমূল সরকার ও দল ধর্মঘট ভাঙতে নানা জায়গায় হামলা চালিয়েছে। মমতা সরকার হামলা চালিয়েছে বামপন্থীদের উপর। উত্তর ২৪ পরগনায় ২ দিন ধরে চলেছে বাড়ী বাড়ী হুমকি, পার্টি অফিস ভাঙা ইত্যাদি। মিছিলের উপর আক্রমন হয়েছে। পুলিশ প্রশাসন নীরব থেকেছে বা দলীয় নির্দেশ পালন করেছে। গণতন্ত্র বিপন্ন, আক্রান্ত অধিকার। সুদুর কুচবিহার, আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিন দিনাজপুর, মালদা, মুর্শিদাবাদ, নদীয়া, উত্তর ২৪ পরগনা, কলকাতা, দ: ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলী, পূর্ব বর্ধমান, পশ্চিম বর্ধমান, বাঁকুড়া, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা, রেল ইউনিয়ন ইত্যাদি প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে কমরেডরা ধর্মঘটকে সফল করে তুলেছেন। এর বাইরেও আরো অনেক ধরনের উদ্যোগ চলেছে। এই প্রক্রিয়ায় নদীয়া জেলায় একটি স্বাধীন মিড ডে মিল ও নির্মান ইউনিয়ন এ আই সি সি টি ইউ-র সাথে যুক্ত হয়েছে। সমস্ত জেলাগুলিকে, সমস্ত গণ সংগঠনকে এ আই সি সি টি ইউ রাজ্য কমিটির পক্ষ থেকে লাখো লাখো লাল সেলাম।

খণ্ড-26
সংখ্যা-2
10-01-2019