অটোমেশন বনাম কর্মসংস্থান – সংকট ডেকে আনছে মার্কিন দেশে

আগামীদিনে অটোমেশন বনাম কর্মসংস্থানের সংকটটা কোন দিকে যেতে চলেছে সেটা বুঝতে মার্কিন দেশের সাম্প্রতিক অভিজ্ঞতাটি পড়ে দেখুন।

আমাজন গোতে ঢুকে একটু হোঁচট খেলাম। এপ স্ক্যান করিয়ে ঢুকে খাবার কিনে বেরিয়ে চেক-আউট কাউন্টার খুঁজছি। এক ভদ্রমহিলা বললেন – চেক-আউট নেই। আইটেম নিয়ে সোজা বেরিয়ে যান, বিল ইমেলে পাঠিয়ে দেবে আমাজন!

ফিরে উঁকিতে দেখলাম সিয়াটেলের এই আমাজন গো সদ্য। এটা আমাজনের একপিস “বিটা” ট্রায়াল। সম্পূর্ণ অটোমেটেড হয়ে যাবে। আমাজন নিজেই রিটেইল অটোমেশন বেচবে। একটা রিটেল স্টোর চালাতে (শুধু দিনে ১২ ঘণ্টা খুলে রাখলে) আমেরিকাতে ৪ জন ওয়ার্কার থাকলে, ন্যূনতম মজুরির ধাক্কায় খরচ মাসে ন্যূনতম ১৫ হাজার ডলার। সেন্সর আরআইপি ক্যামেরার দাম এখন এতো সস্তা ওর থেকে অনেক কম টাকায় রিটেল অটোমেশন সেটই নেমে যাবে। ইনফ্যাক্ট ভারতের মতো লো কস্ট দেশেও অটোমেশন লেবারের থেকে সস্তা হবে।

একদিকে মাইক্রোসফটের বিল্ড কনফারেন্স যা হচ্ছে কিনা ডেভেলপার কনফারেন্স, তাদেরও অনেকেই চিন্তায়। সবই তো মাইক্রোসফট অটোমেট করে দিচ্ছে। একটা বিরাট এপ্লিকেশন করতেও আর অত কোড়িং-এর দরকার নেই। ডোমেইন নলেজ থাকলেই হবে। অনেক ডেভেলপারই কনফারেন্স অ্যাডেন্ড করতে এসে মুখ চুন করে ঘুরে বেড়াচ্ছে। কারণ সত্যিই আগামী দিনের ঠিক নেই।

কি গেরো। কনফারেন্স থেকে বেরিয়েই রাতের ডিনার কিনতে আমাজন গোতে ঢুকেছিলাম। সেখানেই দেখি রিটেল সব অটোমেটেড।

এদিকে এলন মাস্ক বলেই দিয়েছেন ২০২০ সালের পর কাউকে ড্রাইভ করতে হবে না। ২০২০ সালে ৫ লাখ অটোমেটেড টেসলা আসছে – পুরোটাই নাকি উবের বুক করে নিয়েছে! উবের চালিয়ে কিছু লোক করে খাচ্ছিল, তাও গেল!

অটোমেশনের গতি কেউ ঠেকাতে পারবে না। কিন্তু মুশকিল হচ্ছে ধরুন আমাজন রিটেল অটোমেশন সেট বেচছে। ফলটা কি হবে? যার হাতে টাকা আছে, সে একই সাথে হেসে-খেলে ৫-১০টা রিটেল স্টোর চালাবে। কোনো লোক হায়ার করার দরকার নেই। ফলে একজন খুব লাভ করল। কিন্তু বহু লোক চাকরি হারালো। অটোমেশনের ফলে ধনের অসাম্য লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়বে। কারণ অধিকাংশ লোকজনের শিক্ষার মান যে লেভেলে, তাদের পক্ষে রিটেল বা সাধারণ মানের কাজ ছাড়া সম্ভব না।

কোনো চাকরিই আজ মেশিনের হাত থেকে “সেফ” না। প্রশ্নটা হচ্ছে মিশন কোন চাকরিটা আজ খাবে, ভার্সেস কাল খাবে।

সত্যিই এক অদ্ভূত সময়ের মধ্যে আমরা। নতুন কাজ যে তৈরি হবে না তা নয়। প্রচুর প্রচুর সমস্যা আছে – তার সমাধানে আরও বেশি লোক লাগবে। কিন্তু এসব তো সবই হাই এন্ড – দশ লাখ লোকের একজন তা নিতে ভাবার ক্ষমতা রাখে না।

কি যে হতে চলেছে, কেউ জানে না!

–  (হোয়াটস অ্যাপের পাতা থেকে)

খণ্ড-26
23-05-2019