নীরবে চলে গেলেন কলকাতার ভবানীপুরের কমরেড পার্থ দত্ত

গত ১৭ জুলাই। সদা হাসিমুখ, অত্যন্ত বিনয়ী কমরেড পার্থ তরুণ বয়সে পার্টির সদস্য হয়েছিলেন। বছর কয়েক আগে ফ্রন্টাল ব্রেনে টিউমার ধরা পড়ার পর ভেলোরে অস্ত্রোপচারের করে ভাল হয়ে বাড়ি ফেরে। অসুস্থতা নিয়েই আবার পার্টির কাজে যোগদান করেন। বয়স হয়েছিল আনুমানিক ৫৪ বছর। গত প্রায় একবছর তিনি বাড়ির বাইরে বের হওয়ার মতো অবস্থায় ছিলেন না। কিছুদিন আগে অবস্থা খুবই অবনতি হয়ে পড়ায় কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। সেরে ওঠার সম্ভাবনা ক্ষীণ হয়ে আসায় বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। মাল্টি অর্গান ফেলিওর শুরু হয়। ১৭ জুলাই সকালে নাগাদ কমরেডের দেহ নিথর হয়ে যায়। মারণ ব্যাধির শিকার হয়ে দীর্ঘ কয়েক বছর দুঃসহ টানাপোড়েনের মধ্য দিয়ে চলছিলেন। এতো যন্ত্রণার মধ্যেও অত্যন্ত নম্র স্বভাবের মৃদুভাষী কমরেড পার্থ পার্টির কার্যকলাপ প্রসঙ্গে খুবই কৌতূহলী থাকতেন। কমরেড পার্থর মৃত্যুসংবাদ পেয়ে অঞ্চলের কমরেডরা, পার্টির কলকাতা জেলা কমিটির প্রবীর (বাবু) দাস, রেল পার্টি সংগঠনের পার্থ ব্যানার্জী প্রমুখ সাথী- বন্ধুজন শেষযাত্রায় অংশগ্রহণ করে অন্তিম শ্রদ্ধা জানান। কমরেড পার্থর প্রয়াণে পার্টির ভবানীপুর-কালীঘাট অঞ্চলের পার্টি সংগঠন, কলকাতা পার্টি কমিটি ও রাজ্য কমিটির পক্ষ থেকে গভীর শোকপ্রকাশ করা হয়। এমন একজন পার্টি কর্মীর অকালে চিরবিদায় নেওয়া অত্যন্ত বেদনার। কমরেড পার্থ দত্ত লাল সেলাম।

খণ্ড-26
সংখ্যা-21
18-07-2019