ত্রিপুরার পশ্চিম খিলপাড়া পঞ্চায়েতে ৯ দফা দাবিতে ডেপুটেশন ও সভা

১৩ নভেম্বর সিপিআই(এমএল) লিবারেশন উদয়পুর বিভাগীয় কমিটির উদ্যোগে পশ্চিম খিলপাড়া পঞ্চায়েতে এক প্রতিনিধিমূলক ডেপুটেশন প্রদান করা হয়। স্মারকলিপিতে উল্লেখিত দাবিসমূহ —

  • ২০১৯/২০ অর্থবছরে পঞ্চায়েত এর বেশিরভাগ ওয়ার্ডে এমএনরেগা প্রকল্পে একদিনও কাজ হয়নি। বাঙালির প্রধান উৎসব দুর্গোৎসবের সময় পিডিএফ প্রকল্পে দুদিন কাজ করানো হলেও এখনো দেড় মাস অতিক্রান্ত কিন্তু শ্রমিকরা মজুরি পায়নি। অপরদিকে, কর্মহীনতার কারণে গ্রামীণ শ্রমিক পরিবারে প্রচন্ড অর্থাভাব চলছে। এমতাবস্থায় দাবি হল রেগা প্রকল্পে দ্রুত কর্মপ্রকল্প/ওয়ার্ক অর্ডার রচনা করে কাজের ব্যবস্থা করা ও ন্যায্য মজুরি প্রদান করা।
  • সুখসাগরজলা যা গোমতী ও দক্ষিণ ত্রিপুরা জেলার শস্যভান্ডার বলে খ্যাত বিগত ৮/৯ বছর যাবত জলমগ্ন থাকায় অনাবাদি ও পতিত হয়ে গেছে। কেননা উদয়পুর রেল স্টেশন ও আগরতলা-সাব্রুম ব্রডগেজ লাইন এই সুখসাগরজলা অতিক্রম করেছে।তাই আমাদের দাবি; বৈজ্ঞানিকভাবে জল নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করে অনাবাদি জমিকে দ্রুত চাষ উপযোগী করা, কৃষকদের সমস্ত ঋণের মকুব করা।
  • শীতলা বাড়ি থেকে সুখসাগরজলা মাঝ বরাবর হয়ে উদয়পুর রেল স্টেশন অব্দি রাস্তাটা দ্রুত সংস্কার ও পাকা রাস্তায় উন্নীত করে জনসাধারণের চলাচলোপযোগি করা; জলায় বসবাসকারী ৩০টি পরিবারের জন্য পরিশ্রুত পানীয়জল এর ব্যবস্থা করা।
  • পশ্চিম খিলপাড়া পঞ্চায়েতের প্রতিটি চলাচলের রাস্তা দ্রুত সংস্কার করা ৫, ৬ নং ওয়ার্ডেভানু লোধ-এর বাড়ি হতে ঐকতান সংঘ ভায়া সাফাতুল মিঞার বাড়ি পর্যন্ত চলাচলের অনুপযোগী রাস্তাটি দ্রুত সংস্কার করা।
  • পঞ্চায়েত এর প্রতিটি রাস্তায় রাতে বৈদ্যুতিক আলোর ব্যবস্হা করা, অকেজো ‘সোলার লাইটগুলো’র দ্রুত সারাই/মেরামত করা।
  • ২ নং ওয়ার্ডে পানীয়জল সরবরাহ কেন্দ্রে আয়রন রিমুভ্যাল প্ল্যান্ট স্হাপন করা।
  • সামাজিক সুরক্ষামূলক বিভিন্ন ভাতা প্রকল্পে নতুনভাবে আবেদনকারীদের সুফলভোগী নির্বাচন করা; ভেরিফিকেশনের নামে ভাতা প্রাপকদের হয়রানি বন্ধ করা ও ন্যূনতম ভাতা ৩,০০০ টাকা করা।
  • সরকারী জলাশয় “নানুয়া দিঘি”-তে মৎস্য চাষের অধিকার সরকারি নিবন্ধিত সমবায় সমিতির উপর দায়দায়িত্ব অর্পণ করা; জলাশয়ের লিজ মানি/রাজস্ব বাবদ প্রাপ্ত অর্থ পঞ্চায়েতের উন্নয়নমূলক কাজে ব্যয় করা।
  • কৃষকদের স্বার্থে একটি ভিএলডব্লিউ স্টোর স্থাপন করা।
খণ্ড-26
সংখ্যা-37
21-11-2019